আই এস এল-এর পাশাপাশি এবার বিশ্বকাপারকে নিয়েও লাল হলুদে ঘনিয়ে এলো ধোঁয়াশা। জানতে পড়ুন।


বেঙ্গল ফুটবল নিউজ ডেস্ক, ৩১ জুলাই,২০১৮

         এই মরশুমে লাল হলুদের আই এস এল -এ খেলা নিয়ে ইতিমধ্যেই সৃষ্টি হয়েছে ধোঁয়শা। এবার আই এস এল - এর পর ফের লাল হলুদ শিবিরে ধোঁয়াশা সৃষ্টি হলো কোস্টারিকার বিশ্বকাপার জনি অ্যাকোস্টার আগমনকে কেন্দ্র করে। এবার বিশ্বকাপের পরপরই জনি অ্যাকোস্টাকে সই করিয়ে ভারতীয় ফুটবল জগতে এক ইতিহাস গড়েছিল লাল হলুদ শিবির। মূলত আই এস এল -এ খেলার জন্যই অ্যাকোস্টাকে দলে টানতে চেয়েছিল লাল হলুদ তথা কোয়েস কর্তারা। কিন্তু এবার বিপত্তি বাঁধল এই বিশ্বকাপারকে কেন্দ্র করেই।




         এই মরশুমে লাল হলুদের আই এস এল-এ যোগদানের সম্ভবনা খুবই কম। আর এই সংবাদ শুনেই আর কলকাতার মাটিতে পা রাখতে চাইছেন না অ্যাকোস্টা। অ্যাকোস্টা তাঁর এজেন্ট মারফত জানিয়েছেন যে লাল হলুদের সঙ্গে তাঁর সারা বছরের চুক্তি থাকলেও সেখানে আই এস এল - এর কথা উল্লেখ ছিল। কাজেই আই এস এল -এ ইস্টবেঙ্গল এবার অংশগ্রহন না করলে আর লাল হলুদ শিবিরে যোগ দেবেননা তিনি। যদিও দেবব্রত সরকার কিছুদিন আগে জানিয়েছিলেন যে ভিসা সমস্যার দরুন আসতে বিলম্ব হচ্ছে অ্যাকোস্টার। তবে বর্তমান পরিস্থিতিতে দাড়িয়ে দেবব্রত সরকারের এই বক্তব্য কতখানি গ্রহনযোগ্য তা নিয়ে সন্দেহ হয়। 


         যদিও এরপরই নড়েচড়ে বসেছেন ক্লাব এবং কোয়েস কর্তারা। অ্যাকোস্টার এজেন্ট মারফতই তাকে পরিস্থিতি বুঝিয়ে কলকাতাতে আনার চেষ্টা করছেন তাঁরা। শুধু তাই নয়, এরপরই ফের ফেডারেশন কর্তা প্রফুল প্যাটেলের দ্বারস্থ হয়েছেন লাল হলুদ কর্তারা। এবং ইস্টবেঙ্গল কর্তাদের অনুরোধে প্রফুল প্যাটেল ব্যক্তিগত ভাবে ফের আইএমজিআর কর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে এই মরশুমেই ইস্টবেঙ্গলকে আই এস এল - এ খেলার অনুমতি দেওয়ার কথা জানিয়েছেন। তবে কোনো কিছুই এখনও চূড়ান্ত নয়। যা পরিস্থিতি তাতে এখন বলা যায় যে আই এস এল এবং বিশ্বকাপার এই দুইয়ের সুযোগই এখন লাল হলুদ শিবিরে ৫০-৫০।

No comments