আই লিগের আগেই দল পরিবর্তিত হতে চলেছে লাল হলুদের। জানতে পড়ুন।


বেঙ্গল ফুটবল নিউজ ডেস্ক৩১ জুলাই,২০১৮

         সিএফএল-এর দল ঘোষণা হয়ে গেলেও আই লিগের দল নিয়ে ইস্টবেঙ্গলে চলেছে এখনও নানান রদবদল। কোয়েসের সঙ্গে চুক্তির পরই আই এস এল-এ খেলতে মরিয়া লাল হলুদ শিবির চেয়েছিল তাদের দলকে নতুন ভাবে গোছাতে। যদিও এই মরশুমে সম্ভবত আর আই এস এল-এ খেলা হচ্ছে না লাল হলুদের, তবে শেষ আই লিগ যেন লাল হলুদের ঘরেই উঠে আসে তার জন্য উঠে পরে লেগেছেন লাল হলুদ তথা কোয়েস কর্তারা।


            বিশ্বকাপার সই করা হয়ে গিয়েছে অনেক আগেই। এখন দলে প্রয়োজন একজন ভালো স্ট্রাইকার। সেইমতো ইতিমধ্যেই অনেক বিদেশি তারকাদের নাম উঠে এসেছে লিস্টে। কিন্তু যেমন অনেক নতুন তারকা প্লেয়াররা আসতে চলেছেন তেমনি লাল হলুদ শিবির থেকে বাদও পড়তে চলেছেন অনেক তারকা ফুটবলারই। এই প্রসঙ্গে কাৎসুমির নাম বিশেষ ভাবে উল্লেখযোগ্য।




           কাৎসুমি গত মরশুমে লাল হলুদের হয়ে বেশ ভালো পারফরম্যান্স করায় এই মরশুমের আই লিগের জন্যও তাকে সই করিয়েছিল 'কিংফিশার ইস্টবেঙ্গল"। কিন্তু বিপত্তি বাঁধে কোয়েসের সঙ্গে চুক্তির পর। কোয়েস ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের ৭০% শেয়ার কিনে নেওয়ার জন্য তারাও এখন সমান ভাবে লাল হলুদ বাহিনীর নানান মতামতে সামিল। কোয়েস কর্তারাও এখন ইচ্ছে করলে দল থেকে কোনো প্লেয়ারকে ছাটাই করতে পারবেন এবং নতুন প্লেয়ার নেওয়ার ক্ষেত্রেও মতামত দিতে পারবেন। সেইমতোই কাৎসুমিকে নিয়ে বিপত্তি বাঁধায় কোয়েস কর্তারা। তাঁরা কাৎসুমিকে দলে রাখতে নারাজ, কোয়েস কর্তাদের মতে কাৎসুমি নয় বরং আরও উচ্চমানের প্লেয়ার প্রয়োজন লাল হলুদে। কারণ লাল হলুদকে কোয়েস কর্তারা সবদিক থেকে ভারতের এক নম্বর ক্লাবে রূপান্তরিত করতে চান, এবং তার জন্য যা প্রয়োজন তা সবই করতে রাজি কোয়েস কর্পোরেশন। আর যেহেতু ক্লাব কর্তারাও কোয়েস কর্তাদের প্লেয়ার নিয়ে এই মতামতের ব্যাপারটিকে মেনে নিয়েছেন তাই তাদের কথা মেনেই ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের পক্ষ থেকে কাৎসুমিকে ইতিমধ্যেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে আই লিগের জন্য অন্য কোনো ক্লাব খুঁজে নিতে।  


            যদিও বিষয়টিতে এখনও নারাজ কাৎসুমি। কিন্তু কাৎসুমির বক্তব্যকে দূরে সরিয়ে রেখে লাল হলুদ কর্তারা জানিয়েছেন যে কাৎসুমির চুক্তি হয়েছিল "কিংফিশার ইস্টবেঙ্গল" কোম্পানির এর সঙ্গে। কিন্তু এখন যেহেতু তা পরিবর্তিত হয়ে "কোয়েস ইস্টবেঙ্গল" হয়েছে তাই কাৎসুমির সইটিরও আর কোনো বৈধতা থাকেনা। যদিও কোয়েস কর্তারা জানিয়েছেন যে কাৎসুমিকে তাঁর প্রাপ্য ক্ষতিপূরণ দিয়ে দেওয়া হবে এবং লাল হলুদ কর্তারা প্রয়োজনে কাৎসুমিকে আই লিগের জন্য খুঁজে দেবেন নতুন ক্লাবও। তাই বলা যায় যে শেষ অবধি আর এই মরশুমে লাল হলুদ জার্সিতে দেখা যাবেনা কাৎসুমিকে, তাঁর জায়গায় অন্য বিদেশি খুঁজতে এখন ব্যস্ত হয়ে উঠেছেন কোয়েস এবং ক্লাব কর্তারা।

No comments