তবে কী খুব শীঘ্রই স্পনসর ঘোষণা হতে চলেছে বাগান শিবিরে? জানতে পড়ুন।


বেঙ্গল ফুটবল নিউজ ডেস্ক১২ জুলাই, ২০১৮

       ইতিমধ্যেই কোয়েস কর্পোরেশনকে স্পনসর হিসেবে ঘোষণা করে ময়দানে বড়ো চমক দিয়েছে ইস্টবেঙ্গল। ইস্টবেঙ্গলের পর এবার শোনা যাচ্ছে যে মোহনবাগানও খুব শীঘ্রই ঘোষণা করতে চলেছে তাদের স্পনসর। যদিও এ বিষয়ে এখনও স্পষ্ট ভাবে কিছু জানানো হয়নি ক্লাব-এর পক্ষ থেকে। তবে ঘটনা পরিস্থিতি যে দিকে গড়াচ্ছে তাতে বলাই যায় যে হয়তো শীঘ্রই জানা যাবে কে বা কারা হতে চলেছে মোহনবাগানের স্পনসর। সুত্রের খবর স্পনসর-এর দৌড়ে রয়েছে এক মোটরবাইক প্রস্তুতকারক সংস্থা।


             শোনা যাচ্ছে যে আগামী ১৬ ই জুলাই ক্লাবের কর্মসমিতির বৈঠক হতে চলেছে বাগান শিবিরেরই এক কর্তার নিজস্ব হোটেলে। এরপর নাকী থাকছে নৈশভোজও। কাজেই বলাই যায় হয়তো আগামী ১৬ জুলাই-ই জানা যাবে বাগান শিবিরের এমরশুমের স্পনসরের নাম। ক্লাব কর্তারা এবিষয়ে নিজেদের মুখ না খুললেও, এই ঘটনাটি ঘটা অসম্ভবের কিছু নয়। তবে বাগানের স্পনসর এলেও তারা যে ইস্টবেঙ্গলের সমকক্ষ হচ্ছে না সে বিষয়ে জানা গিয়েছে ময়দান সূত্র থেকেই।




            এর মধ্যেই আবার বাগানের গোষ্ঠী দ্বন্দ্ব নিচ্ছে নয়া মোর। পরিস্থিতি যা তাতে হয়তো অঞ্জন - টুটুর দ্বন্দ্বের মীমাংসা হয়ে গেলেও হয়ে যেতে পারে। তবে শর্ত একটিই,  দেবাশিস দত্তকে ক্লাবে কোনোভাবেই স্থান দিতে রাজি নন শাসক গোষ্ঠী। কাজেই দেবাশিস দত্তকে মাঝ থেকে সরাতে পারলেই একমাত্র টুটু - অঞ্জন সামঝোতা সম্ভব। অপরদিকে সিদ্ধান্তে অনড় দেবাশিস দত্তও। তিনিও জানিয়েছেন হাই কোর্টে মনমতো রায় না পেলে তিনি সুপ্রিম কোর্টেও যেতে পিছ পা হবেন না।


          অন্যদিকে বাগান শিবিরকে কেন্দ্র করে শাসক এবং বিরোধী গোষ্ঠীর মধ্যে আদালতে যে মামলা চলেছে তাতে বিচারপতি জানিয়েছেন যে, দুই পক্ষের উকিলকেই ৫ জন করে প্রাক্তন বিচারপতির নাম আদালতে জমা দিতে হবে। সেখান থেকেই তিন জন বিচারপতিকে ক্লাবের নির্বাচনের পর্যবেক্ষক হিসেবে নিযুক্ত করা হবে। আর তাদের পর্যবেক্ষণেই সেপ্টেম্বরের মধ্যেই নির্বাচন পর্ব সারতে হবে ক্লাব কমিটিকে। এ ব্যাপারে শাসক গোষ্ঠীর কোনো আপত্তি না থাকলেও শোনা যাচ্ছে যে, তারা চাইছেন সেপ্টেম্বরের বদলে ডিসেম্বরে নির্বাচন প্রক্রিয়া চালাতে। তবে এর মধ্যেই যদি বাগান শিবিরের পরস্পর দুই বিরোধী গোষ্ঠীর মধ্যে সামঝোতা হয়ে যায় তাহলে হয়তো আর নির্বাচন নয় বরং তার বদলে হতে পারে সিলেকশন।

No comments