তবে কী ইস্ট-মোহন বাদেই এবারের আইএসএল ?


বেঙ্গল ফুটবল নিউজ ডেস্ক, ২৯ মার্চ,২০১৯

আগামী মরশুমে দেশের এক নম্বর লিগ সম্ভবত হতে চলেছে আইএসএল-ই। আর দেশের এক নম্বর লিগে যাতে দল খেলতে পারে তাই কোয়েসকে ইনভেস্টর হিসেবে আনা হয়েছিল লাল হলুদে।কিন্তু কাল মিটিং-এর পর জল যেদিকে গড়াচ্ছে তাতে কোয়েস আদৌ আগামী মরশুমে আইএসএল-এ যোগ দেবে কীনা সেটিই প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ আর ইস্ট-মোহনের এহেন দোটানায় বিরক্ত এফএসডিএল এবারে সম্ভবত আর ইস্ট-মোহনের অপেক্ষা না করেই বিড ঘোষণা করতে চলেছে।

১৫ কোটি টাকা ফ্রাঞ্চাইজি ফি দিয়ে যোগদান করতে হয় আইএসএল-এ। আর আর্থিক এই সমস্যা মিটিয়ে যাতে আইএসএল-এ যোগদান করা যায় তারজন্যই লাল হলুদে এসেছিল কোয়েস। কিন্তু কাল মিটিং-এ কোয়েস কর্তারা স্পষ্টই জানিয়েছেন যে, ফেডারেশনের আর্থিক এবং অন্যান্য শর্তাবলীর সবটা মেনে কোয়েস ইস্টবেঙ্গল আইএসএল-এ খেলতে অনিচ্ছুক। এমতাবস্থায় বিরক্ত এফএসডিএল কর্তারা তাই এবারে চাইছেন ইস্ট-মোহনের সঙ্গে আর কোনো কথা না বাড়িয়ে যতো দ্রুত সম্ভব আইএসএল-এ বিড ঘোষণা করে দেওয়া৷






চালু হওয়ার পর পরই জনপ্রিয়তা হারায় আইএসএল তাই জনপ্রিয়তা বাড়াতে দুই প্রধান ইস্ট-মোহনকে আইএসএল-এ টানতে আগ্রহী ছিলেন এফএসডিএল-এর কর্তারা। মোহনবাগানকে নিয়ে শুরু থেকে সন্দেহ থাকলেও কোয়েস ইস্টবেঙ্গল কর্তারা জানিয়েছিলেন যে ইস্টবেঙ্গল আগামী মরশুমে আইএসএল-এই খেলবে। সেইমতো ফেডারেশন এবং এফএসডিএল কর্তাদের সঙ্গে অনেকবার মিটিং-ও সারেন কোয়েস কর্তা অজিত আইজ্যাক। ইস্ট-মোহন বিশেষত মোহনবাগানের আর্থিক সমস্যার জেরেই বারবার বিড পিছিয়ে আনা হচ্ছিল আগামী মরশুমের আইএসএল-এর। কিন্তু এবারে ইস্ট-মোহন ফের দুই প্রধানই আইএসএল খেলতে অনীহা প্রকাশ করায় তাদের সঙ্গে আর কথা না বলে যতো দ্রুত সম্ভব বিড ঘোষণা করতে আগ্রহী এফএসডিএল কর্তারা।


আইএসএল-এর জনপ্রিয়তা কম হলেও ফেডারেশনের সঙ্গে এফএসডিএল-এর চুক্তি থাকায় আইএসএল-কে তুলতে পারবেনা ফেডারেশন। এবং ফিফার নির্দেশ অনুযায়ী যেহেতু এবার আইএসএল এবং আই লিগের মধ্যে যেকোনো একটিকেই প্রধান লিগ করতে হবে তাই এফএসডিএল এর সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী আইএসএল-কেই দেশের এক নম্বর লিগ হিসেবে স্থান দিতে চলেছেন ফেডারেশন কর্তারা। তাই এই মুহূর্তে আইএসএল-এ না খেলার সিদ্ধান্ত ইস্ট-মোহনের জন্যই ক্ষতিকর বলে মত প্রকাশ করছেন ফেডারেশন কর্তারা। অপরদিকে আইএসএল-এর জনপ্রিয়তা বাড়াতে আরও অন্যান্য রাজ্য থেকেও দল আনতে এখন আগ্রহী এফএসডিএল। ইস্ট-মোহন যদি না-ই হয় তবে এখন আরও নতুন দল তুলে নিয়ে এসেই আইএসএল-এর জনপ্রিয়তা বাড়াতে সচেষ্ট এফএসডিএল কর্তারা।

No comments