অহেতুক রাজনীতির শিকার কোয়েস ইস্টবেঙ্গল। জানালেন অজিত আইজ্যাক।


বেঙ্গল ফুটবল নিউজ ডেস্ক, ১৭ মার্চ,২০১৯

সুপার কাপ, আইএসএল নিয়ে ইতিমধ্যেই বিতর্ক শুরু হয়েছে ইস্টবেঙ্গলে। সুপার কাপে লাল হলুদ আদৌ অংশগ্রহণ করবে কীনা তা নিয়ে ক্লাব কর্তাদের থেকে সদুত্তর পাওয়া সম্ভব হচ্ছেনা। যদিও এই প্রসঙ্গে ইস্টবেঙ্গল সচিব কল্যাণ মজুমদার ফেডারেশনকে এক চিঠি দিয়ে জানিয়েছিলেন যে ইস্টবেঙ্গল সুপার কাপ সহ সমস্ত প্রতিযোগিতামূলক টুর্নামেন্ট খেলতেই প্রস্তুত৷ তথাপি সেই বিষয় নিয়েই নতুন করে বিতর্কে পরতে হয় ইস্টবেঙ্গলকে।


কল্যাণ মজুমদার ফেডারেশনকে এই প্রসঙ্গে চিঠি প্রেরণ করার পর ফেডারেশনের তরফ হতে হঠাৎ-ই ইস্টবেঙ্গলের নিকট এক পত্র আসে, ইস্টবেঙ্গল আইএসএল-এ খেলতে চায় কীনা তা জানতে চেয়ে৷ আর এখান থেকেই ফের বিতর্কের সূত্রপাত ঘটে লাল হলুদ তাবুতে। ফেডারেশনের এহেন চিঠি পাওয়ার পরই সোমবার মিটিং ডাকেন লাল হলুদ ক্লাব কর্তারা। কিন্তু সেই মিটিং নিয়ে কোয়েস কর্তা অজিত আইজ্যাক কোনো আগ্রহ প্রকাশ করেননি বলে দাবী ক্লাব কর্তাদের। যদিও কোয়েস কর্তাকে মিটিং-এ উপস্থিত থাকতে বিশেষ অনুরোধ করেছিলে লাল হলুদ কর্তারা। কিন্তু হঠাৎ কেনো লাল হলুদ কর্তাদের সহিত মনমালিন্য কোয়েস কর্তার?




শোনা যাচ্ছে ফেডারেশনে চিঠি ঘিরেই সমস্যার শুরু। ফেডারেশনের পক্ষ থেকে একটি চিঠি ইস্টবেঙ্গলকে পাঠিয়ে জানতে চাওয়া হয় যে, তারা আগামী মরশুমে আইএসএল-এ খেলবে কীনা! আর এখানেই অসন্তুষ্ট কোয়েস কর্তা। ফেডারেশনের এই চিঠিটিকে কোয়েস কর্তা অজিত আইজ্যাক অদ্ভুত চিঠি বলে আখ্যা দিয়ে জানিয়েছেন যে, আইএসএল-এর দরপত্র ওঠার আগেই ইস্টবেঙ্গলকে এইপ্রকার চিঠি করার কোনো যুক্তি নেই ফেডারেশনের। শুধু আইজ্যাকই নয় এই নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বাকী অনেক আই লিগের ক্লাবও, তাদের মতে ইস্টবেঙ্গলকে এহেন চিঠি করায় আইএসএল-এর দরপত্রের আর কোনো মূল্যই থাকলোনা, তা রয়ে গেলো লোক দেখানো হিসেবেই। স্বাভাবিকভাবেই ফেডারেশন বিরুদ্ধে সরব হয়েই উপরোক্ত ক্লাব মিটিং -এ যোগদানের ইচ্ছে প্রকাশ করেননি অজিত আইজ্যাক। তবে শুধু এই বিষয়টিই নয়, অজিত আইজ্যাক আরও জানালেন যে তিনি বিরক্ত ক্লাব পলিটিক্স নিয়েও।


যখন সুপার কাপ, আইএসএল নিয়ে চতুর্দিকে ধোঁয়াশা তখন কোয়েস কর্তা অজিত আইজ্যাক তাদের কোয়েস ইস্টবেঙ্গলের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজের মাধ্যমে জানান যে, ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের তুলনা নেই, ইস্টবেঙ্গলের সমর্থকেরা বিশ্বের সেরা সমর্থক বেসগুলির একটি। তাই এই সমর্থকদের সমর্থন পেয়ে তিনি আপ্লুত৷ সমর্থকদের আশা অনুযায়ীই কোয়েস চেষ্টা করবে ইস্টবেঙ্গলকে বিশ্বের প্রথম সারির ক্লাবগুলোর মধ্যে একটি করার। কিন্তু তার সঙ্গে অজিত আইজ্যাক বিরক্তিও প্রকাশ করেন ক্লাব পলিটিক্স নিয়ে। তিনি জানান যে, ইস্টবেঙ্গল ক্লাব কিছু সদস্যদের অহেতুক রাজনীতির শিকার হচ্ছে। ফেডারেশনের পাঠানো অদ্ভুত চিঠিকে নিয়েই চলছে ক্লাব পলিটিক্স। তাই অজিত আইজ্যাক অনুরোধ করেছেন যে এসব অহেতুক পলিটিক্স এরিয়ে QEBFC কে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য সবাই যেনো এগিয়ে আসেন৷ বলা বাহুল্য কোয়েস কর্তার এহেন বক্তব্যে আজ এটি স্পষ্ট হয়ে গেলো যে ইস্টবেঙ্গল তাঁবু ক্লাব পলিটিক্সের শিকার হচ্ছে। এবং এমন চলতে থাকলে ইস্টবেঙ্গল ক্লাব কর্তা এবং কোয়েস কর্তাদের মধ্যে মনমালিন্য প্রায় অনিবার্য।

No comments