সুপার কাপে খেলছে আলেজান্দ্রোর-ই লাল হলুদ বাহিনী।


বেঙ্গল ফুটবল নিউজ ডেস্ক, ২৫ মার্চ,২০১৯

সমস্ত ধোঁয়াশা কাটিয়ে শেষ অবধি সুপার কাপ খেলতে নামছে আলেজান্দ্রোর-ই ইস্টবেঙ্গল বাহিনী। সুপার কাপ নিয়ে বিতর্ক বাঁধে আই লিগ শেষের পর থেকেই। ভারতীয় ফুটবলের রোডম্যাপ কি তা ফেডারেশন আই লিগের ক্লাবগুলোকে পরিষ্কার ভাবে না জানানোয় সুপার কাপ বয়কট করে বসে আই লিগের ক্লাব জোট। যাতে সামিল ছিল কলকাতার দুই প্রধান ইস্ট-মোহন-ও৷ 




ইস্ট-মোহন এই জোটে সামিল থাকলেও বিরোধ বাঁধে কোয়েস কর্মকর্তা এবং ইস্টবেঙ্গল ক্লাব কর্তাদের ভিন্ন মত নিয়ে। কোয়েস কর্তা অজিত আইজ্যাক যেখানে সামিল হয়েছিলেন ক্লাব জোটে সেখানেই ক্লাব কর্তারা এই জোটে সামিল হতে নারাজ। তারা চেয়েছিলেন যে কোনো ভাবে ইস্টবেঙ্গল যেন সুপার কাপে খেলতে নামে৷ কিন্তু এই বিষয়ে কোয়েস কর্তা সরাসরি সম্মতি না জানানোয় ক্লাব কর্তারা ইস্টবেঙ্গল প্রেসিডেন্ট XI নামে অপর একটি দল গঠন করে সুপার কাপ খেলার কথা ঘোষণা করেন৷ যদিও এখন সেই পথে আর হাঁটতে হচ্ছেনা ইস্টবেঙ্গলকে। সমস্ত শঙ্কা কাটিয়ে সূত্রের খবর যে শেষ অবধি সুপার কাপ খেলতে চলেছে আলেজান্দ্রোর লাল হলুদ বাহিনীই। 


রিয়েল কাশ্মীর, ইস্টবেঙ্গল সহ ধীরে ধীরে অনেক আই লিগের ক্লাবই জোট থেকে বেড়িয়ে এসে সুপার কাপ খেলতে মত প্রকাশ করছেন। কোয়েস ইস্টবেঙ্গল দলেরও ইতিমধ্যেই সুপার কাপে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হয়েছে। ফলে লাল হলুদ সমর্থকদের স্বস্তি দিয়ে এবারে সুপার কাপ খেলতে নামছেন বোরহা - জনি - কোলাডো- টোনি-রা৷ যেখানে সুপার কাপ জটিলতা ক্রমশ শেষ হচ্ছে, সেখানে কোয়েস এবং ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের বিতর্ক-ও মিটিয়ে ফেলতে সক্রিয় কোয়েস কর্তারা৷ ২৮ তারিখের মিটিং-এ সম্ভবত ক্লাব কর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে সমস্ত সমস্যার সমাধান করতে আগ্রহী কোয়েস কর্তারা। কারণ কোয়েস - ইস্টবেঙ্গল সম্পর্ক ছিন্ন করতে তাঁরা মোটেই রাজি নন। কাজেই বলা যায় যে, ইস্টবেঙ্গল বিতর্ক এবারে শেষের পথে। সমর্থকদের শঙ্কা কাটিয়ে যেমন থাকছে কোয়েস-ইস্টবেঙ্গল জোট, তেমনি সুপার কাপের ময়দানেও দেখা যেতে চলেছে সমর্থকদের প্রিয় আলেজান্দ্রোর লাল হলুদ বাহিনীকে।

1 comment:

  1. Jai east bengal.
    Power of Bengal it's my East Bengal.

    ReplyDelete